November 17, 2019, 12:05 pm

স্কুলছাত্রীকে অচেতন করে ধর্ষণ, ছবি ধারণ

স্কুলছাত্রীকে অচেতন করে ধর্ষণ, ছবি ধারণ

ফেনীর সোনাগাজীতে দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে অচেতন করে ধর্ষণ করেছে এক বখাটে। পরে আপত্তিকর ছবি তুলেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আশফাকুল রহমান বাবলাকে (৩৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের বাদামতলী এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার আশফাকুল দিনাজপুর জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের হরিরামপুর আদর্শ গ্রামের আবদুর রশিদের ছেলে। সে দীর্ঘদিন সোনাগাজী উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের বাদামতলী এলাকায় নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করার পাশাপাশি স্ত্রীসহ ভাড়া বাড়িতে থাকতো।

সোনাগাজী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. সাইফুদ্দিন জানান, গত রোববার সন্ধ্যায় ওই ছাত্রী তার নানাবাড়িতে বেড়াতে আসে। রাত আটটার দিকে বাসার ভাড়াটে আশফাকুল কোমল জাতীয় পানির মধ্যে চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে এনে ছাত্রী ও তার নানা-নানিকে দেন।

কোমল পানীয় খাওয়ার কিছুক্ষণ পর ঘরের সবাই অচেতন হয়ে পড়েন। পরে গভীর রাতে ঘরে ঢুকে আশফাকুল ওই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করে ও নানীর ব্যবহৃত মুঠোফোনে আপত্তিকর ছবি তোলে।

সোমবার সকালে বিষয়টি টের পেলে বাড়ির লোকজন আশফাকুলকে খুঁজে বের করতে তৎপর হয়ে ওঠেন। পরে বিকালে ছাত্রীর মামা বাদী হয়ে আশফাকুলকে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ আরও জানায়, নির্মাণ শ্রমিক আশফাকুল গত কয়েক মাস আগে স্ত্রীসহ ওই বাড়িতে ভাড়া নিয়ে থাকছেন। সে সুবাধে ওই পরিবারের লোকজনের সঙ্গে তার ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সোমবার সন্ধ্যায় স্থানীয় লোকজন আশফাকুলকে খুঁজে বের করে বেধড়ক পিটিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মঈন উদ্দিন আহমেদ বলেন, ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ছাত্রীটিকে ফেনী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজ আদালতে ২২ ধারায় তার জবানবন্দি গ্রহণ করা হবে।

অপরদিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আশফাকুল পুলিশের কাছে ধর্ষণ ও মুঠোফোনে ছবি তোলার কথা স্বীকার করেছে। গ্রেপ্তারকৃত আশফাকুলকে আজ ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিমের আদালতে হাজির করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন




Copyright By: Jaflong View
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ