November 20, 2019, 11:28 am

‘ওষুধ’ রোগে আক্রান্ত উপজেলার একমাত্র স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স

‘ওষুধ’ রোগে আক্রান্ত উপজেলার একমাত্র স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স

সুনামগঞ্জ প্রতিবেদক:সুনামগঞ্জ জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জের পাগলা বাজার সংলগ্ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি উপজেলার একমাত্র সরকারি চিকিৎসাকেন্দ্র। সারা উপজেলায় চিকিৎসাসেবার জন্য এর চেয়ে ভালো আর কোন চিকিৎকেন্দ্র না থাকায় প্রতিদিনই এখানে চিকিৎসা নিতে শত শত সাধারণ মানুষ ভিড় জমান। ডাক্তাররাও চিকিৎসাসেবা প্রদান করে যাচ্ছেন। কিন্তু রোগীদের তুলনায় পর্যাপ্ত পরিমাণ সরকারি ঔষধ সরবরাহ না থাকায় শুধু প্রেসক্রিপশনেই সীমাবদ্ধ রয়েছেচিকিৎসা ব্যবস্থা। ফলে প্রতিদিনই বুক ভরা আশা নিয়ে চিকিৎসা নিতে আসলেও খালি হাতে ফিরছেন অনেকেই ।

পর্যাপ্ত ঔষধ সরবরাহ না থাকায় ভোগান্তির শেষ নেই চিকিৎসা নিতে আসা দরিদ্র ও নিম্নআয়ের মানুষদের। রোগীর উপস্থিতি বেশি হওয়ায় অনেকে ঔষধ পান অনেককে আবার খালি হাতে ফিরতে হয়, এভাবেই চলছে হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থা। আর তাতে করে ব্যহত হচ্ছে পরিপূর্ণ চিকিৎসাসেবা প্রদান। চিকিৎসা নিতে আসা সাধারণ মানুষের দাবি পর্যাপ্ত পরিমাণ ঔষধ সরবরাহের ব্যবস্থা করলেই এই ভোগান্তি থেকে মুক্তি পাবেন তারা।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, চিকিৎসাসেবা নিতে এসেছেন শত শত মানুষ। সেবার কাজে নিয়োজিত ডাক্তারও দিচ্ছেন সেবা। কিন্তু চাহিদা অনুযায়ী ঔষধ সরবরাহ না থাকায় সামান্য ঔষধ দিয়ে বিদায় করা হচ্ছে রোগীদের । রোগীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় চিকিৎসা সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন কর্তব্যরত চিকিৎসকরা । আবার অনেক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে ঔষধ না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে বাড়ি ফিরছেন অনেকেই।

চিকিৎসা সেবা নিতে আসা শাহ আলম বলেন, শুধু প্রেসক্রিপশনে লেখা দুই একটি ঔষধ পাওয়া যায়। আমরা গরীব মানুষ সরকারি হাসপাতালে আসি চিকিৎসার জন্য কিন্তু এখানে এসে পর্যাপ্ত ঔষধ পাইনা।

জাহানারা নামের আরেকজন বলেন, আমরা সাধারণ মানুষ এখানে আসি সরকারি ঔষধ নিতে। কিন্তু সবধরণের ঔষধ দিতে পারেন না ডাক্তাররা। আমরা সরকারি ঔষধ থেকে বঞ্চিত।

পূর্ব পাগলা ইউপি স্বাস্থ্য পরিদর্শিকা শাহিনা বেগম বলেন, চিকিৎসা সেবা নিতে আসা লোকের সংখ্যা বেশি হওয়ায় রোগীদের চাহিদা অনুযায়ী ঔষধ দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। সরকার যে পরিমাণ ঔষধ দেয় তা দিয়ে সবার চাহিদা পূরণ হয় না। যদি ঔষধের পরিমান বৃদ্ধি করা হয় তাহলে এই সমস্যার সমাধান হবে।

উপজেলা মেডিকেল অফিসার ডা. তানভির আনসারী বলেন, প্রতিদিন এখানে চিকিৎসা নিতে শত শত মানুষ লাইন ধরেন। আমরা আমাদের সর্বোচ্চ দিয়ে তাদের সেবা দিচ্ছি। কিন্তু মানুষের উপস্থিতির তুলনায় ঔষধ কম থাকায় আমরা সবাইকে পর্যাপ্ত ঔষধ দিতে পারি না।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জসিম উদ্দিন বলেন, সরবরাহকৃত ঔষধের তুলনায় রোগীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় সবাই কে সকল প্রকারের ঔষধ দেয়া সম্ভব হয় না। তাই ইতিমধ্যেই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর ঔষধের চাহিদা প্রেরণ করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন




Copyright By: Jaflong View
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ